1. nongartv@gmail.com : Nongartv :
  2. suhagranalive@gmail.com : Suhag Rana : Suhag Rana
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৫৫ অপরাহ্ন

ভিন্ন আঙ্গিকে ‘পাঠ্যপুস্তক উৎসব’ : সিলেটে ঘাটতি ৪ লাখ ৩৮ হাজার ৬০০ বই

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • আপডেটের সময় শুক্রবার, ১ জানুয়ারী, ২০২১

মহামারি করোনার মধ্যেও সব সংশয় কাটিয়ে নতুন বছরের প্রথম দিনে উপহার হিসেবে বিনা মূল্যের পাঠ্যবই পেলো প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। তবে করোনার কারণে ‘পাঠ্যপুস্তক উৎসব’ বাতিল হওয়ায় এবার ভিন্ন আঙ্গিকে বই বিতরণ করা হচ্ছে। তাই স্কুলমাঠে থাকছে না শিশু-কিশোর শিক্ষার্থীদের সেই চিরাচরিত। প্রশাসন ও শিক্ষকরাই বিতরণ করছেন বই। স্বাস্থ্যবিধি মেনে নতুন বই নিতে নিজ নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গেছেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকেরা। সকাল থেকেই প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের পক্ষে অভিভাবকেরা এবং মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নিজে গিয়ে বই বিতরণের কর্মসূচিতে অংশ নেয়।

এবার সিলেট জেলার ১৩ উপজেলায় প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণী, প্রাথমিক স্তর এবং নৃ-গোষ্ঠীর বইয়ের চাহিদা ২৬ লাখ ৮ হাজার ৬২৬টি থাকলেও বইয়ের ঘাটতি রয়েছে ৪ লাখ ৩৮ হাজার ৬০০। ঘাটতি হওয়া বইগুলোর প্রিন্ট শেষ হলেই শিক্ষার্থীদের হাতে বই পৌঁছে দেয়া হবে বলে জানিয়েছে শিক্ষা বিভাগ।

তারা বলছে, এবার মাধ্যমিক পর্যায়ে প্রতিটি শ্রেণীর বই বিতরণের জন্য তিন দিন করে সময় দেওয়া হয়েছে। ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণী শিক্ষার্থীদের বই বিতরণে ১২ দিন সময় পাবে স্কুলগুলো। প্রতিষ্ঠানগুলো আলাদা আলাদাভাবে প্রতিটি শ্রেণী শিক্ষার্থীদের বই বিতরণের ব্যবস্থা করেছে।
নতুন বছরের প্রথম দিন শুক্রবার সকালে নগরীর সরকারী কিন্ডারগার্টেন স্কুল ও সরকারী অগ্রগামী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের হাতে ঝকঝকে নতুন বই তুলে দেন সিলেটের জেলা প্রশাসক এম. কাজী এমদাদুল ইসলাম।

শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, সিলেট জেলায় এবার মাধ্যমিক স্তরে মোট বইয়ের চাহিদা ৪৪ লাখ ৬৬ হাজার ৬৪৮, দাখিল স্তরে ৯২ হাজার ৯৫৯ আর ইবতেদায়ী স্তরে ৫ লাখ ৮২ হাজার ৭৫৮। সবমিলিয়ে মোট বইয়ের চাহিদা ৫৯ লাখ ৭০ হাজার ৩৬৫ কপি। এছাড়া প্রাক-প্রাথমিকে মোট বইয়ের চাহিদা ২৬ লাখ ৮৬ হাজার ৬২৬ কপি।

জানা যায়, সিলেটের ১৩ উপজেলায় ২০২১ শিক্ষাবর্ষের প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণী, প্রাথমিক স্তর এবং নৃ-গোষ্ঠীর বই বরাদ্দের কথা ছিলো ২৬ লাখ ৮ হাজার ৬২৬টি। এই চাহিদার মধ্যেও প্রাপ্ত বইয়ের সংখ্যা ২১ লাখ ৭ হাজার ২৬টি। সেই হিসেব অনুসারে এখনও সিলেটের ১৩ উপজেলায় বইয়ের ঘাটতি রয়েছে ৪ লাখ ৩৮ হাজার ৬০০ বইয়ের। এরমধ্যে ৬টি উপজেলায় শতভাগ বই পৌঁছালেও বাকী ৭টি উপজেলায় শতভাগ বই এখনও পৌঁছায়নি। জেলার ১৩ উপজেলার মধ্যে দক্ষিণ সুরমা উপজেলায় বইয়ের ঘাটতি রয়েছে ৭২ হাজার ৬০০। বিশ্বনাথ উপজেলায় বইয়ের ঘাটতি রয়েছে ৫১ হাজার ৭৪০। বিয়ানীবাজার উপজেলায় বইয়ের ঘাটতি রয়েছে ৬৯ হাজার ৮৫০। জকিগঞ্জ উপেজলায় বইয়ের ঘাটতি রয়েছে ৭৬ হাজার ৬৫০। জৈন্তাপুর উপজেলায় বইয়ের ঘাটতি রয়েছে ৫৮ হাজার ২৩২। গোয়াইনঘাট উপজেলায় বইয়ের ঘাটতি রয়েছে ৯২ হাজার ৫৪৮ এবং কোম্পানীগঞ্জে বইয়ের ঘাটতি রয়েছে ১৬ হাজার ৯৮০।

সিলেট জেলা শিক্ষা অফিসার নামজিদ খান  বলেন, উৎসব না হলেও উৎসব মুখোর পরিবেশে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বই বিতরণ করা হয়। যারা নির্ধারিত সময়ে বই নিতে পারেননি তারা স্কুল থেকে বই সংগ্রহ করতে পারবেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

© 2020 Nongartv.com . Design & Development by PAPRHI
Theme Customization By Freelancer Zone
shares