1. nongartv@gmail.com : Nongartv :
  2. suhagranalive@gmail.com : Suhag Rana : Suhag Rana
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০৭ পূর্বাহ্ন

দেশে কয়েকদিনের বন্যায় পানিতে ডুবে ১৬ জনের মৃত্যু

নোঙর টিভি ডেস্ক
  • আপডেটের সময় বুধবার, ১ জুলাই, ২০২০

গত কয়েকদিনে দেশের বিভিন্ন স্থানে বন্যার পানিতে ডুবে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে কুড়িগ্রামে চার উপজেলায় পাঁচজন, জামালপুরের দুই উপজেলায় দুই সহোদর শিশুসহ তিনজন, ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুরে দুইজন ও কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া বগুড়ার ধুনট, গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া, দিনাজপুরের বিরামপুর ও মেহেরপুর সদর উপজেলায় একজন করে পানিতে ডুবে মারা গেছেন।

কালের কণ্ঠের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

কুড়িগ্রাম : ২৮ জুন থেকে আজ পর্যন্ত চার উপজেলায় বন্যার পানিতে ডুবে পাচঁজনের মৃত্যু হয়েছে। কুড়িগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয় বন্যার পানিতে ডুবে চার শিশুসহ পাঁচজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

সূত্র জানায়, সর্বশেষ বুধবার দুপুরে সদর উপজেলার মোগলবাসা এলাকার কানাই রায়ের দুই বছরের কন্যা শিশু কথা রায় বানের পানিতে পড়ে মারা যায়। এর আগে ২৮ জুন রবিবার সকালে বানের পানিতে পড়ে চিলমারী উপজেলার সদর ইউনিয়নের কড়াই বরিশাল গ্রামের জাহেদুল ইসলামের পুত্র শান্ত ইসলাম (৭) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়। তাঁর পরিবারের লোকজন জানায়, শান্ত কলার ভেলায় করে ঘুরে বেড়াতে গিয়ে পানিতে ডুবে মারা যায়। একই দিনে একই উপজেলার নয়ারহাট ইউনিয়নের বয়লার পটল গ্রামের জামাল উদ্দিন (৫৫) বন্যার পানিতে ডুবে মারা গেছেন।

এদিকে গত সোমবার (২৯ জুন) নাগেশ্বরী উপজেলার নারায়ণপুর ইউনিয়নের মোল্লাপাড়া গ্রামের আমীর হোসেনের পুত্র বেলাল হোসেন (৮) বন্যার পানিতে ডুবে মারা গেছেন। বাড়ির পাশে দোকান থেকে বিস্কুট কিনতে গিয়ে রাস্তার পাশে বন্যার কারণে ভেঙে যাওয়া গর্তে পড়ে তার মৃত্যু হয়। পরেরদিন মঙ্গলবার মরা যায় উলিপুর উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের জানজায়গির গ্রামের সাইফুল ইসলামের পুত্র মোস্তাকিম (১৪ মাস)। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে নিজেদের ঘরে বন্যার পানিতে পড়ে শিশুটির মৃত্যু হয়।

জামালপুর : একদিনে জেলার দুটি উপজেলায় বন্যার পানিতে ডুবে দুই সহোদর শিশুসহ তিন শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে জেলার বন্যা নিয়ন্ত্রণ কক্ষ নিশ্চিত করেছে।

সূত্র জানায়, আজ বুধবার জামালপুর জেলার মেলান্দহ ও ইসলামপুর উপজেলায় বন্যার পানিতে ডুবে দুই সহোদরসহ তিন শিশুর মৃত্যু হয়েছে। বুধবার সকালে জেলার মেলান্দহ উপজেলার ঘোষেরপাড়া ইউনিয়নের পশ্চিম ঘোষেরপাড়া গ্রামের বাচ্চু মিয়ার মেয়ে শিশু শর্মিলা (৪) বাড়ির পাশে সরকারি শেখ কামাল কলেজ মাঠে অন্যদের সাথে খেলতে যায়। হঠাৎ করে বন্যার পানিতে পড়ে ডুবে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়। অপরদিকে জেলার ইসলামপুর উপজেলার পাথর্শী ইউনিয়নের পশ্চিম হাড়িয়াবাড়ি এলাকায় বেলা ১টার দিকে বাড়ির পাশে বন্যার পানিতে পড়ে নিখোঁজ হয় স্থানীয় আনোয়ার হোসেনের ছেলে আলামিন (৭) ও আলপিনা (৬)। জামালপুর ও ইসলামপুরের ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি ও উদ্ধারকর্মীরা টানা চার ঘণ্টা অনুসন্ধান চালিয়ে বিকেল ৫টার দিকে শিশু দুটিকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

ঠাকুরগাঁও : হরিপুর উপজেলার ডাঙ্গীপাড়ায় পানিতে ডুবে দুই স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। রবিবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে শিহিপুর গন্দর সেতুর নিচ থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়।

তারা হলো- উপজেলা রণহাট্টা গ্রামের আলমের ছেলে হামিদুর রহমান (১৫), সে এ বছর রণহাট্টা চৌরঙ্গী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় পাস করে। একই উপজেলার নারগুন গ্রামের সোহাগের ছেলে ও একই বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র রহিত (১২)।

হরিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিরুজ্জামান জানান,  রবিবার দুপুর ২টার দিকে হামিদুর, রহিতসহ কয়েকটি শিশু শিহিপুর গন্দর সেতুর নিচের বন্যার পানিতে গোসল করছিল। একপর্যায়ে হামিদুর ও রহিত গভীর পানিতে তলিয়ে যায়। ফায়ার সার্ভিসের একটি দল দুই ঘণ্টা চেষ্টায় তাদের লাশ উদ্ধার করে।

কুষ্টিয়া : ভেড়ামারায় পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। উপজেলার মোকারিমপুর ইউনিয়নের ক্ষেমিড়দিয়াড় বিলপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। শনিবার বেলা একটার দিকে স্থানীয় ব্যক্তিরা বাড়ির পাশে খাল থেকে তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করেন।

মারা যাওয়া দুই শিশু হলো ক্ষেমিড়দিয়াড় গ্রামের জিল্লুর রহমানের ছেলে মুরসালিন (৭) ও সুজন ইসলামের ছেলে আবরার আরাফাত (৫)। তারা একে অপরের চাচাতো ভাই।

ভেড়ামারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহজালাল বলেন, পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যুর ঘটনায় সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। উভয় পরিবারের কোনো অভিযোগ না থাকায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ দাফন করা হয়েছে।

বগুড়া : ধুনট উপজেলায় বৃষ্টির পানি জমে থাকা খাদে পড়ে মিনা খাতুন (৫) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে উপজেলার কুড়িগাতী গ্রামের মারা যায় সে। মিনা খাতুন একই গ্রামের রফিকুল ইসলামের মেয়ে।

ধুনট উপজেলার মথুরাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হারুন-অর-রশিদ সেলিম জানান, কয়েক দিনের বৃষ্টিতে কুড়িগাঁতি গ্রামের রফিকুল ইসলামের বাড়ির পাশে খাদে পানি জমে আছে। মঙ্গলবার দুপুরের দিকে খাদের পাশেই খেলা করছিল শিশুটি। এক পর্যায়ে অসাবধানতাবশত খাদের পানিতে পড়ে শিশুটি মারা গেছে। বগুড়ার ধুনট থানার ওসি কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ কর্মকর্তাকে পাঠানো হয়েছে। তিনি বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন।

গোপালগগঞ্জ : কোটালীপাড়ায় পানিতে ডুবে দুই বছরের এক শিশু মারা গেছে। বুধবার উপজেলার হিরণ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে বলে কোটালীপাড়া থানার ওসি শেখ লুৎফর রহমান জানান। মৃত রওজা খানম ওই গ্রামের জুলহাস মুন্সীর মেয়ে।

ওসি বলেন, রওজাকে পুকুর থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মেয়েটি বাড়ির পাশের পুকুর পাড়ে খেলা করার সময় রওজা পা পিছলে পড়ে যায় বলে ধারণা এ পুলিশ কর্মকর্তার।

দিনাজপুর : বিরামপুরে পুকুরের পানিতে ডুবে জিহাদ হোসেন (২) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। বুধবার দুপুর ১২টার দিকে বিরামপুর উপজেলার কাটলা ইউনিয়নের দক্ষিণ দামোদরপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। শিশু জিহাদ হোসেন ওই এলাকার নুর ইসলামের ছেলে।

শিশুটির মা জোসমিন আক্তার বলেন, সকালে মাঠে কৃষিকাজের জন্য বেরিয়ে যান আমার স্বামী। পরে আমি গরুকে ঘাস খাওয়ানোর জন্য মাঠে যাই। এসময় জিহাদ বাড়িতেই খেলা করছিল। মাঠ থেকে ফিরে এসে জিহাদকে বাড়িতে দেখতে না পেয়ে আশেপাশে খোঁজাখুজির এক পর্যায়ে বাড়ির পাশে পুকুরে জিহাদকে ভাসমান অবস্থায় দেখতে পাই। স্থানীয়রা জিহাদকে পানি থেকে উদ্ধার করার আগেই তার মৃত্যু হয়।

বিরামপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান মনির বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘খেলতে খেলতে পুকুরের পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যের খবর শুনেছি। তাদের পরিবারের অভিযোগ না থাকায় এঘটনায় ইউডি (অপমৃত্যু) মামলা দায়ের করা হয়েছে।’

মেহেরপুর : সদর উপজেলার ময়ামারি গ্রামে পানিতে ডুবে রনি (আড়াই বছর) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় তারই জমজ ভাই জনিকে জীবিত উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রনি ও জনি ময়ামারি গ্রামের মুনসাদ আলীর ছেলে।

রনির চাচাতো ভাই এনামুল জানান, বুধবার সন্ধ্যার কিছুক্ষণ আগে তার চাচাতো দুই জমজ ভাই রনি ও জনি বাড়ির সামনের একটি পুকুর পাড়ে খেলা করার সময় রনি পানিতে পড়ে যায়। এসময় তার জমজ ভাই জনি তাকে উদ্ধারে এগিয়ে গেলে সেও পানিতে ডুবে যায়। পরে স্থানীয়রা রনিকে মৃত অবস্থায় ও তার জমজ ভাই জনিকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করে। জীবিত উদ্ধার হওয়া জনিকে মেহেরপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

© 2020 Nongartv.com . Design & Development by PAPRHI
Theme Customization By Freelancer Zone
shares